রিয়াদে উৎসবমুখর পরিবেশে বাংলা নববর্ষ বরণ

নিজস্ব প্রতিনিধি, বর্তমানকন্ঠ ডটকম, সৌদি আরব :  সৌদি আরবের রিয়াদে উৎসবমুখর পরিবেশে বাংলা নববর্ষ বরণ করে প্রবাসীরা। রিয়াদের সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন শ্যাডো আল-তুমামাহ’র বাগানবাড়িতে বৃহৎ পরিসরে এই আয়োজনটি করে। আয়োজনে সহযোগিতা করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস।

বিপুলসংখ্যক প্রবাসীরা নিজেদের পরিবার-পরিজন নিয়ে এই মেলায় যোগ দেন। সারা দিনব্যাপী এ আয়োজনে সৌদি আরবের বিভিন্ন প্রদেশ থেকে বাঙালিদের আগমনের সঙ্গে বিদেশিদেরও যোগ দিতে দেখা যায়।
শুরুতে শ্যাডোর পক্ষ থেকে অতিথিদের গামছা পরিয়ে দেওয়া হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ’র উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও দূতাবাসের ডিফেন্স এ্যাটাশে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহআলম চৌধুরী প্রধান অতিথি হিসেবে অনুষ্ঠানের শুভউদ্বোধন করেন। নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রবাসে বাংলাদেশের সংস্কৃতি লালন করে বর্ষবরণের এই আয়োজনটিকে তিনি ‘অসাধারণ’ উল্লেখ করেন। বিদেশে নতুন প্রজন্মদের স্বদেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির সাথে পরিচয় করে দেওয়ার জন্য এ ধরণের আয়োজন অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান ‍তিনি।
এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রদূতের সহধর্মিণী সৈয়দা গুলে আরজু। এছাড়া দূতাবাসের কর্মকর্তা, তাঁদের পরিবারের সদস্যসহ কমিউনিটির সামাজিক, রাজনৈতিক, পেশাজীবী ও সাধারণ প্রবাসীরা উপস্থিত ছিলেন।
মেলায় পণ্যের সমাহার নিয়ে প্রায় ৩৫টি স্টল পশরা সাজিয়েছে। এতে দেশের ঐতিহ্যবাহী বাহারি খাবার, জামদানী শাড়ি দেশজ পণ্যপশরা দর্শনার্থীদের আগ্রহের সৃষ্টি করে। অনেকে বলেছেন, দেশিয় পণের এই আয়োজনে তারা মুগ্ধ। কেননা সচরাচর এসব পণ্যের সমাহার সৌদি বিপণী কেন্দ্রে অঢেল পরিমাণে দেখা যায় না। স্টলের ব্যবসায়ীরা বলেছেন, এবারের মেলায় তাদের লাভজনক ব্যবসা হয়েছে। দেশিয় পণ্যের প্রতি প্রবাসীদের কেনাকটার আগ্রহে আগামী দিনে এ ধরণের আয়োজনে স্টল নেওয়ার জন্য তাদের আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছ।
অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে ছিল দূতাবাসের কর্মকর্তা এবং তাদের সন্তানদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানমালা। কাউন্সেলর ড. ফরিদ উদ্দিন-এর পরিকল্পনা ও সঞ্চালনায় এতে সমবেত সংগীত, কবিতা আবৃত্তি, নৃত্য পরিবেশন করে কনস্যুলার-সন্তানরা। গান গেয়ে শোনান দূতাবাসের দ্বিতীয় সচিব মো. সফিকুল ইসলাম ও মো. বশির। বৈশাখের কবিতা আবৃত্তি করেন প্রেসউইং এর সচিব ফখরুল ইসলাম।
রিয়াদের তোমামায় ইস্তেরাহা নাওয়াফিতে বর্ষবরণে সমবেত কণ্ঠে এসো হে বৈশাখ গানটি পরিবেশন করা হয়। গান গেয়ে শোনায় নির্ঝর, আদৃত, স্বস্তি, লুবাবা, শেমুষী, কবিতা আবৃত্তি করে নাবিহা, অন্বেষা, মাহির ও নির্ঝর। নৃত্য পরিবেশন করে শেমুষী, স্বস্তি ও নাবিহা।
দ্বিতীয় পর্বে শ্যাডো পরিবেশন করে সমবেত কণ্ঠে দেশের গান, প্রবাসী প্রজন্মদের নৃত্য, কবিতা আবৃত্তি, বিভিন্ন অঙ্গের সংগীত এবং ব্যান্ডের গান। এতে প্রবাসী শিল্পীরা অংশ নেয়। অনুষ্ঠানে সৌদি আরবের দাম্মাম থেকে কণ্ঠশিল্পী এবং যন্ত্রশিল্পীরাও যোগ দেন।
শ্যাডো’র কর্মকর্তারা বলেছেন, এ ধরণের অনুষ্ঠান আয়োজন করতে প্রবাসে তাদের অনেক পরিশ্রম হয়েছে। প্রায় দুই মাস ধরে প্রবাসী বাংলাদিশের সঙ্গে যোগাযোগ এবং এর প্রচারসহ সবকিছু ব্যবস্থায় পরিশ্রমের শেষ ছিল না তাদের। এই আয়োজনের সার্বিক সহযোগিতা করার জন্য দূতাবাসের রাষ্ট্রদূতসহ সকল কর্মকর্তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিযেছে তারা।
শ্যাডো’র সংগীত পরিচালনায় ছিলেন, সাংবাদিক অহিদুল ইসলাম। এ সময় তাকে সহযোগিতা করেন রিয়াদের দীর্ঘ দিনের অভিজ্ঞ যন্ত্রশিল্পীরা।  অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন শ্যাডোর দক্ষ নেতৃত্ব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *