রিয়াদ বাংলা স্কুলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক প্রদত্ত তিন কোটি টাকা অনুদানের চেক হস্তান্তর

নিজস্ব প্রতিনিধি, বর্তমানকন্ঠ ডট কম, সৌদি আরব:

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক প্রদত্ত তিন কোটি টাকা অনুদানের চেক হস্তান্তর করে রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ স্কুলের শিক্ষকদের ব্যক্তিগত টিউশনী বন্ধের আহবান জানান। তিনি স্কুলের ব্যবস্থাপনা পর্ষদ এবং শিক্ষকদের, প্রয়োজনে ক্যাম্পাসের ভেতরে সুষ্ঠু পরিচালনায় শিক্ষার্থীদের জন্য নিয়মতান্ত্রিকভাবে অতিরিক্ত শিক্ষাক্রম চালু করার পরামর্শ দেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, প্রবাসে অভিভাবকরা সন্তানদের টিউশনী কভার করার জন্য প্রত্যেক দিন শিক্ষকদের এ-বাড়ি ও-বাড়ি আসা-যাওয়া করে হাঁপিয়ে উঠেছেন। কোনো কোনো শিক্ষক ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষায় ভালো ফল করাতে পারবেন এমন আশ্বাস দিয়ে অভিভাবকদের সম্মত করছেন। প্রাইভেট টিউশনী আইনসিদ্ধ নয় জেনেও কেউ কেউ তা করেই যাচ্ছেন। এ ধরণের চর্চা বন্ধ করতে হবে।

১৪ মে রাতে রিয়াদে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ (বাংলাদেশ কারিকুলাম) আয়োজিত প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত প্রবাসীকল্যাণ তহবিলের চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে এসময় উপস্থিত ছিলেন দূতাবাসের ইকনমিক মিনিস্টার ড. আবুল হাসান, শ্রম কাউন্সেলর সারোয়ার আলম, সোনালি ব্যাংকের এজিএম আব্দুল ওয়াহাব, ১ম সচিব আসাদুজ্জামান ও দূতাবাসের প্রেসউইং সচিব ফখরুল ইসলাম।

রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার প্রবাসী বান্ধব। তাই প্রবাসীদের সন্তানদের পড়াশোনা নির্বিঘ্ন করার লক্ষ্যে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড থেকে তিনি এই অর্থ বরাদ্দ দিয়েছেন।

রাষ্ট্রদূত অনুদানের এই অর্থ সঠিকভাবে স্কুল উন্নয়নে খরচ করার জন্য কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন। এছাড়া ছাত্রছাত্রীদের দেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে অধিক পাঠদানের মধ্য দিয়ে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করার জন্য শিক্ষকদের প্রতি আহবান জানান।

গোলাম মসীহ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করে তাঁর গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ মহাকাশে স্যাটেলাইট পাঠাতে সক্ষম হয়েছে উল্লেখ করেন। তিনি বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে এবং ২০৪১-এ একটি উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে এমন নিশ্চিত আশাবাদও ব্যক্ত করেন।

জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন শেষে বিওডি সদস্য রফিকুল ইসলাম ও সিনিয়র শিক্ষক মাহবুবুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, অধ্যক্ষ বদরুল আলম, পর্ষদের চেয়ারম্যান মোস্তাক আহম্মেদ, ভাইস চেয়ারম্যান নূরুল আমিন, সদস্য আব্দুল হাকিম, সফিকুল সিরাজুল হক, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আফজাল হোসেন সহ আরো অনেকে।

ভাইস চেয়ারম্যান প্রধানমন্ত্রীর অনুদান ছাড়া স্কুলটি চালানো সম্ভব হতো না উল্লেখ করে সরকার প্রধান শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, এটি এখন প্রতিষ্ঠানের জন্য একটি টার্নিং পয়েন্ট।

অনুষ্ঠানের সভাপতি পর্ষদ চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমেদ বলেন, এই স্কুলের ৩৫ বছরের ইতিহাসে একজন প্রধানমন্ত্রীর অনুদান এটাই প্রথম। প্রতিষ্ঠানটি টিকিয়ে রাখার আন্তরিক প্রচেষ্টার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি। মোস্তাক আহমেদ এ ধরণের অনুদান বাস্তবায়নে রাষ্ট্রদূতসহ সকল কর্মকর্তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

শুরুতে রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ তাঁর বক্তৃতায় বিগত পর্ষদের খামখেয়ালীতে স্কুলের ভঙ্গুর অবস্থার বেশ কিছু দিক তুলে ধরে অনুদানের অর্থখরচে স্বচ্ছতা বজায় রাখার জন্য বলেন। স্কুলের শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা এবং ছাত্রীদের ন্যূনতম কারিগরি অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য তাঁর ব্যক্তিগত থাত থেকে অতিরিক্ত অর্থ অনুদান দেওয়ারও প্রতিশ্রুতি দেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াত ও তরজমা করেন, এহসানুল রাফিদ আদিব ।

আলোচনা সভা ও চেক হস্তান্তরের পর দ্বিতীয় পর্বে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন, বিদ্যালয়ের শিক্ষক আব্দুস সাত্তার ও তার দল । বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতায় বিজয়ী ও এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ অর্জনকারিদের হাতে সনদ ও পুরস্কার তুলে দেন উপস্হিত অতিথিবৃন্দ ।

উল্লেখ্য, সৌদি আরবের রিয়াদে বাংলাদেশি কমিউনিটির বিভিন্ন স্কুলউন্নয়নে চলমান আর্থিক সঙ্কট মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুত প্রবাসীকল্যাণ তহবিল থেকে ১০ কোটি টাকা বিতরণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় রিয়াদের বাংলা স্কুলটিকে তিন কোটি টাকা অনুদান দেওয়া হয়। দূতাবাসের প্রেস উইং সচিব (২য়) ফখরুল ইসলাম এক প্রেস রিলিজ এ জানান, এর আগে ১১ মে আল-কাসিম প্রদেশের বুরাইদায় বাংলাদেশ ইন্টারন্যশনাল স্কুলটিকে প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের ৭৭ লক্ষ টাকার চেক হস্তান্তর করেন রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ। এ সময় দূতাবাসের কর্মকর্তা, পরিচালনা পর্ষদ, ছাত্রছাত্রী, অভিভাবক, শিক্ষকবৃন্দ এবং কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *